মঙ্গলবার, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

ইসালামকে অপব্যবহার করে বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়ার পথে বারবার বাধা দেয়ার চেষ্টা করা হয় – শিবচরে শিক্ষামন্ত্রী

ভাষান্তর: | বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

রিয়ান মাহমুদ রিয়াদ, শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধিঃ একটি চক্র যাদের মনে পেয়ারে পাকিস্তান তারা না বুঝে ইসলাম না বুঝে সংস্কৃতি না আছে দেশ প্রেম। এখন শুরু করেছে ভাস্কর্য বিরোধী। মুল কথা হলো বাংলাদেশের এগিয়ে যাওয়া রোধে বারবার চেষ্টা হয় তাও আবার ইসলামকে অপব্যবহার করে। আজকে বাংলাদেশে ইসলাম ধর্মের প্রসার আরো বেড়েছে। পবিত্র কোরআনে বলা আছে ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি না করতে । যারা বলছে ধর্ম নষ্ট হচ্ছে তারা এতিমের টাকা আত্মসাতকারীদের সমর্থনপুষ্ট। যা ইসলামে সম্পূর্নভাবে নিষেধ রয়েছে। ২৯/১১/২০২০ তারিখ রবিবার দুপুরে শিবচরে চৌধুরী ফাতেমা বেগম অডিটোরিয়ামে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা মন্ত্রী ড.দীপু মনি এসব কথা বলেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আওয়ামীলীগ সংসদীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক স্থানীয় সাংসদ নূর-ই আলম চৌধুরী, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা আজম এমপি, সংরক্ষিত মহিলা সংসদ সদস্য শবনম জাহান শীলা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুনির চৌধুরী , জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি সাহাবুদ্দিন মোল্লা, সাধারন সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আঃ লতিফ মোল্লা মেয়র আওলাদ হোসেন খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ শাজাহান মোল্লাকে সভাপতি ও ডাঃ মোঃ সেলিমকে সাধারন সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়। বিকেলে শিক্ষামন্ত্রী উপজেলার দ্বিতীয়খন্ড ইউনিয়নে নব নির্মিত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব রেজাউল করিম তালুকদার টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ উদ্বোধন করেন।

পরে চৌধুরী ফিরোজা বেগম মুক্তমঞ্চে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন। এসময় শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, আমরা শিক্ষাকে বিশ্বমানে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি। বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশে সকল শিক্ষার্থী মান সম্মত শিক্ষার মাধ্যমে বিশ্ব নাগরিকে পরিণত হবে। শেখ হাসিনার এই স্বপ্নকে বাস্তবায়নের জন্য আমরা বদ্ধপরিকর। বাংলাদেশকে উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই আমরা কারিগরি শিক্ষার উপর সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছি। ২০৫০ সালের মধ্যে কারিগরি শিক্ষার ইমপ্রুভমেন্ট অন্তত ৫০ ভাগে নিয়ে যেতে হবে। সম্মেলনে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি মির্জা আজম বলেন, আওয়ামীলীগ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে সব সময়ই ষড়যন্ত্র হচ্ছে। জিয়াউর রহমানের নেতৃর্ত্বে যেমন বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিল। তেমনি আজ তার ছেলে তারেক রহমান বিদেশে বসে শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে।

এই ষড়যন্ত্র এক এক সময় এক এক রুপ ধারন করছে। এই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হিসেবে গত কয়েকদিন ধরে দেখা যাচ্ছে কিছু ইসলামী ধর্ম ব্যবসায়ীরা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য উপড়ে ফেলতে চাইছে। তারা ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। এসকল চক্রান্তের পিছনে ওই তারেক রহমানের হাত রয়েছে। তাই এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে শুধু প্রশাসন নয় আমরা কঠোর হাতে প্রতিহত করবো। চীফ হুইপ নূর-ই আলম চৌধুরী বলেন, আজ আমরা প্রধানমন্ত্রীর নেতৃর্ত্বে একটি উন্নত বাংলাদেশ পেয়েছি। আর এই উন্নত বাংলাদেশে একটি সুসংগঠিত ও শক্তিশালী দল প্রয়োজন। দল যদি শক্তিশালী না হয় তাহলে যে কোন নির্বাচন বা দলীয় কর্মকান্ড পরিচালনা বাধাগ্রস্থ হবে। উন্নয়ন কর্মকান্ড চরমভাবে ব্যহত হবে। তাই দলকে সুসংগঠিত করতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে সাধারন মানুষের পাশে থাকতে হবে।

শেয়ার করুন: