মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৭, ২০২১
bongo-news

অবৈধভাবে বালু উত্তোলন নিষেধ করায় ভাঙ্গায় পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ দখলে বাধা চাচাতো ভাইয়ের

ভাষান্তর: | বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ভাঙ্গা(ফরিদপুর)প্রতিনিধি: ফরিদপুরের ভাঙ্গায় কৃষি জমির পার্শ্ববর্তী পুকুর থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করতে নিষেধ করায় চাচাত ভাইয়ের বিরুদ্ধে পৈত্রিক সম্পত্তি ভোগ দখলে বাধা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার কালামৃধা ইউনিয়নের দেওড়া গ্রামের প্রয়াত মানিক শেখের ছেলে তোতা শেখ এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। চাচাতো ভাইরা ক্ষমতাশালী হওয়ায় বারংবার অভিযোগ করেও জমি ভোগ দখল করতে পারছেন বলে সাংবাদিকদেরকে জানিয়েছেন তোতা শেখ।

অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বসতবাড়ীর সাথেই তোতা শেখের পৈত্রিক সম্পত্তি কৃষি জমি রয়েছে।

এ জমি তিনি দীর্ঘদিন ধরে ভোগ দখল করে আসছিলেন। সম্প্রতি তিনি দীর্ঘদিন সৌদি আরবে প্রবাস থেকে দেশে ফিরে আসেন এরপর লগ ডাউনে কারনে তিনি আর বিদেশে যান নাই। এরপর বাধেঁ আপন চাচাতো ভাইদের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ। ১২২নং দেওড়া মৌজার এস,এ ২১১ নং খতিয়ানের ৪০৮ নং দাগ পুকুর ও এস,এ ৩৮২ নং খতিয়ানের ৪০৭ নং দাগ পাশা পাশি কৃষি জমি। ২/৩ বছর আগে কৃষি জমির সাথে পুকুর থেকে তার চাচাত ভাই প্রয়াত কদম শেখের ছেলে মোঃ আবুল কায়েস ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করে। এই অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করতে তোতা শেখ কায়েস শেখকে নিষেধ করেন।

এই তখন তোতার সাথে কায়েসের বিরোধ সৃষ্টি হয়। কিছুদিন পরে তোতা নিজের কৃষি জমিতে চাষাবাদ করতে গেলে তাকে লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে বাধা দেয় কায়েস। এই বিষয় স্থানীয়ভাবে একাধিক বার শালিস-বৈঠক হলেও কোন সুরাহা হয় নাই। পরে তোতা ভাঙ্গা থানায় ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ করেও সম্পত্তি ভোগ দখল করতে পারছেন না। ভুক্তভোগি তোতা শেখ বলেন, অবৈধ কাজে বাধা দেয়ায় আমি আমার সম্পত্তিতে যেতে পারছি না।

তাই তোতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
এবিষয়ে অভিযুক্ত মোঃ আবুল কায়েস শেখ বলেন, দুটি সম্পত্তি আমার। এবিষয়ে আমি আদালতে মামলাকরেছি।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজিম উদ্দিন বলেন, অভিযোগের ভিত্তিতে এসি (ল্যান্ড)-কে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। উনার (তোতা) বক্তব্যে বলেছিলেন কোর্ট থেকে উনার পক্ষে দখল দিতে বলা হয়েছে। কোর্টের অর্ডার নিয়ে উনাকে (তোতা) সহযোগিতার জন্য থানায় যেতে আমি বলেছি।

শেয়ার করুন: